বৃহস্পতিবার , 25 মে 2017

জিয়া রাজ‌নীতি জী‌বি সৃ‌ষ্টি ক‌রে‌ছে: ওমর ফারুক

M0g7wz_1

জিয়াই রাজনী‌তি জী‌বির সৃষ্টি করেছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী যুবলী‌গের চেয়ারম্যান মুহাম্মাদ ওমর ফারুক। তি‌নি বলেন, জিয়া রাজনী‌তি‌কে টাকা ইনকা‌মের রাস্তা হিসা‌বে ব্যবহার শুরু ক‌রে‌ছি‌লেন যা এখ‌নো পুরাপু‌রি বন্ধ হয়‌নি।

১৮ মে বৃহস্প‌তিবার শিল্পকলা একা‌ডে‌মি‌তে আওয়ামী যুবলীগ এর উদ্যোগে শেখ হা‌সিনার স্ব‌দেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে সংবাদ‌চিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা সভায় তি‌নি এ কথা ব‌লেন।

জিয়াউর রহমা‌নের কথা উল্লেখ ক‌রে তি‌নি ব‌লেন, ‌দে‌শে প্রথম জঙ্গী সৃ‌ষ্টি ক‌রে‌ছেন জিয়া, তি‌নি ব‌লে‌ছি‌লেন মা‌নি ইজ নো প্রব‌লেম যার টাকা আছে সে রাজনী‌তি কর‌বে। আর সেই থে‌কেই রাজনী‌তির অবস্থা খু‌বই খারাপ। তখন থেকে রাজনীতির ক্ষেত্রে টাকা কামা‌নোর যে ধান্দা শুরু হ‌য়ে‌ছে এখ‌নো তার থা‌মে‌নি।

আন্দোলন ক‌ঠোর হ‌বে রিজভির এমন বক্তব্যের কথা উল্লেখ ক‌রে ওমর ফারুক ব‌লেন, যা‌দের রাজপ‌থে ৫০ জন নেতা নাই তারা ব‌লে আন্দোলন কঠোর থে‌কে কঠোর হ‌বে। ‌কিভা‌বে আন্দোলন ক‌ঠোর হ‌বে? আন্দোলন তো ঐ প্রেস ব্রিফিং পর্যন্তই সিমাবদ্ধ থাকবে, মাঠে আর আসবেনা।

ওমর ফারুক ব‌লেন, রাষ্ট্র থে‌কে নির্বাচ‌নে কোন চাপ দেওয়া হয়নি। আর কখনো দি‌বে ও না। যদি চাপ দেওয়া হত তাহলে সি‌টি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএন‌পি জিত‌ল কিভাবে? অথচ এরশা‌দের সময় ব্যালট বাক্স ছিনতাই হ‌ত। খা‌লেদা জিয়ার সময় দেড় কো‌টি ভুয়া ভোটার বানানো হয়েছিল। আর শেখ হা‌সিনার আম‌লে যার ভোট সে দিবে, যা‌কে খু‌শি তা‌কে দিবে। শেখ হা‌সিনা দেশ কে উন্নত কর‌ছে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভা‌বে তার পা‌শে থে‌কে উন্নয়‌নের ধারা কে অব্যাহত রাখ‌তে সাহায্য কর‌ব।

যুবলীগের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা যুবক। আর এখ‌নি কাজ করার সময়। মানু‌ষের শ্রেষ্ঠ সময় হ‌চ্ছে যৌবন কাল। এ কাল কে নষ্ট না ক‌রে কাজে লাগান, ভবিষ্যতের উন্নয়নকে কেউ দমাতে পারবেনা। ‌বেশী অর্থের দরকার নেই। যত কামা‌বেন তত ঝামেলা। আর চাপাবা‌জি কর‌বেন না। চাপাবা‌জি দি‌য়ে জীবন চ‌লেনা। সব সময় সবাইঐক্যবদ্ধ ভা‌বে থাক‌বেন।

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছি‌লেন,আওয়ামী যুবলী‌গের সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারুনুর রশীদ, ঢাকা বিশ্ব‌বিদ্যাল‌য়ের শিক্ষক স‌মি‌তির সভাপ‌তি এস এম মাকসুদ কামাল, বি‌শিষ্ট মি‌ডিয়া ব্যক্তিত্ব জয় ই মামুন, চিত্র নায়কা অঞ্জনা সুলতানা, ঢাকা মহানগর দ‌ক্ষিন যুবলীগ সভাপ‌তি ঈসমাইল চৌধুরী সম্রাট, আতাউর রহমান, শাজাহান ভূইয়া মাখনসহ প্রমুখ।

Print Friendly

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*